না.গঞ্জে যুবলীগ নেতাকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে জখম

শেয়ার করুণ

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লায় পূর্ব শত্রুতা ও আর্থিক লেনদেনের বিরোধকে কেন্দ্র করে সহযোগী সহ যুবলীগ নেতা শামীম তালুকদারকে প্রকাশ্যে দিবালোকে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করেছে সন্ত্রাসী খলিল বাহিনী। সন্ত্রাসীদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে গুরুতর আহত শামীম তালুকদার ও তার সহযোগী আসলামকে মুমূর্ষ অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার (২৮ মার্চ) বিকেলে ফতুল্লার পঞ্চবটিস্থ এলাকায় সন্ত্রাসীরা যুবলীগ নেতা শামীম তালুকদার ও তার সহযোগী আসলামকে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে।

আহত যুবলীগ নেতা শামীম তালুকদার ফতুল্লার শাসনগাও এলাকার মৃত আলাউদ্দিনের ছেলে এবং সহযোগী আসলাম ফতুল্লার শিহারচর এলাকার বাসিন্দা।

প্রত্যক্ষদর্শী ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, ফতুল্লার শাসনগাও এলাকার বাসিন্দা ও ফরিদপুরের খলিলের সাথে শামীম তালুকদারের মধ্যে টাকা পয়সা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। এমনকি খলিললের মেয়ের জামাইয়ের জমি নিয়েও বিরোধ রয়েছে। আর গত কয়েকদিন আগে খলিলের কাছ থেকে জোরপূর্বক ভাবে কয়েক লাখ টাকার চেকও দিয়ে নেয় শামীম তালুকদার। এসব বিরোধকে কেন্দ্র করে মঙ্গলবার বিকেলে আসলামকে সাথে নিয়ে যুবলীগ নেতা শামীম তালুকদার ফতুল্লা থেকে বাড়িতে যাওয়ার সময় পূর্ব থেকে ওৎপেতে থাকা খলিল তার লোকজন নিয়ে শামীম ও আসলামকে গতিরোধ করে তারা কিছু বুজার আগেই তাদের হাতে থাকা ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি ভাবে পেটে পিঠে এবং শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত করতে থাকে। শামীম তালুকদারকে হত্যার উদ্দেশ্যে খলিল এলোপাতাড়ি কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। পরে স্থানীয় লোকজন শামীম তালুকদার ও আসলামকে মুমূর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে খানপুর হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে তাদের অবস্থায় আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাদেরকে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

ঘটনার ব্যাপারে ফতুল্লা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি রিজাউল হক দিপু জানান, লোক মাধ্যমে ঘটনা শুনতে পেরেছি তবে এখনো কেউ থানায় এসে অভিযোগ দায়ের করেনি। ঘটনার সংবাদ পেয়ে ঘটনার বিষয় খোঁজ খবর নেয়া হচ্ছে এবং যারা ঘটনার সাথে জড়িত তাদেরকে আইনের আওতায় আনা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুণ