না.গঞ্জে ৯ দিনের ব্যবধানে ৮ বাড়িতে ডাকাতি

শেয়ার করুণ

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে প্রায় প্রতি রাতেই কোন না কোন বাসা বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা ঘটছে।

গত ৯ অক্টোবর থেকে ১৭ আক্টোবর পর্যন্ত এই সকল ডাকাতির ঘটনা গুলো ঘটে। গত ৯ দিনের ব্যবধানে ৮ বাড়িতে ডাকাতদল হানা দিয়ে লুটে নিয়েছে নগদ টাকা, স্বর্ণালংকারসহ মূল্যবান জিনিসপত্র। পুলিশ এ ঘটনায় ২ আটক ও জনতা ৪ ডাকাতকে গণপিটুনী দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছে। এতে এ নিয়ে উপজেলার সর্বত্র ডাকাত আতঙ্ক বিরাজ করছে। বেশ কিছু গ্রামে পাহাড়া বসিয়েছে স্থানীয় লোকজন। তাতেও রেহাই পাচ্ছে না।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গত মঙ্গলবার (১৭ অক্টোবর) রাত ২ টার দিকে ১৫/২০ জনের সশস্ত্র ডাকাতদল পাচঁগাও মোল্লাপাড়া খোকন মুন্সির বাড়িতে হানা দেয়। তার মেইন গেইটের তালা কেটে রুমের দরজা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে পরিবারের সদস্যদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে নগদ ৭ হাজার টাকা ও ১৫ ভরি ওজনের বিভিন্ন স্বর্ণের অলঙ্কার লুটে নেয়। একই রাত ৩ টার সময় প্রভাকরদী এলাকার ইকবাল হোসেনের বাড়িতে একই কায়দায় হানা দিয়ে ডাকাত দল রুমের ভিতরে প্রবেশ করে নগদ টাকা ৪ লক্ষ টাকা ও সাড়ে ৩ ভরি স্বর্ণালংকার লুটে নেয়।

গত ১২ অক্টোবর রাত আড়াইটার দিকে ১০/১৫ জনের মুখোশ পরিহিত ডাকাতদল সালমদী নয়াপাড়া গ্রামের বেসরকারী চাকুরীজীবি রিপনের বাড়ীতে দরজা ভেঙ্গে ভিতরে ঢুকে তার মা সেতেরা বেগমকে পিটিয়ে গলায় ছুরি ধরে নগদ ৩ লাখ টাকা ও ৭ ভরি স্বর্ণালংকার লুটে নয়। এই রাতে ১০/১২ জনের অপর একটি ডাকাত দল একই রাতে ব্রাক্ষন্দী ইউনিয়নের নরিংদী গ্রামে নুর আলম সিকদারের বাড়ীতে হানা দিয়ে তার স্বজন হোসনাকে পিটিয়ে নগদ ১০ হাজার টাকা ও ১ ভরি স্বর্ণ ছিনিয়ে নেয়। পরে ডাকাত দল মনোহরদী বাজারের সংলগ্ন অটো চালক মাসকুরের বাড়ীতে হানা দিয়ে নগদ ৩০ হাজার টাকা ও ১ ভরি স্বর্ণ নিয়ে যায়। এর আগে গত ৯ অক্টোবর রাত পৌনে একটার দিকে ব্রাহ্মন্দী ডহর মারুয়াদী গ্রামের ব্যবসায়ী শাহজাহান মিয়ার বাড়িতে ৮/১০ জনের মুখোশধারী সশস্ত্র ডাকাতদল হানা দেয়। তার টিনশেড বিল্ডিং এর জানালার গ্রিল কেটে ঘরে প্রবেশ করে পরিবারের সদস্যদের দেশীয় অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে নগদ ১৫ হাজার টাকা ও তিনটি মোবাইল লুটে নেয়। একই রাত দেড়টার দিকে পার্শ্ববর্তী দিঘলদী গ্রামের ব্যবসায়ী রিয়াজ হোসেনের বাড়িতে ১০/১২ জনের একটি সশস্ত্র ডাকাদল হানা দেয়। ডাকাতদল বাড়ির কেচি গেইটের তালা ভেঙ্গে রুমের ভিতর প্রবেশ অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে রিয়াজ হোসেনসহ করে পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের হাত পা বেঁধে নগদ দেড় লক্ষ টাকা ৫ ভরি স্বর্ণালংকার, তিনটি মোবাইল সেটসহ মূল্যবান আসবাবপত্র লুটে নেয়। একই রাত ৩ টার দিকে বড় মনোহরদী গ্রামের ব্যবসায়ী আবুল হোসেনের বাড়িতে একই কায়দায় ১০/১২ জনের সশস্ত্র ডাকাত দল রুমের ভিতর প্রবেশ করে নগদ ৩ লাখ ১০ হাজার টাকা এবং দুই ভরি ওজনের বিভিন্ন স্বর্ণালংকার লুটে নেয়।

এ ব্যাপারে আড়াইহাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আহসান উল্লাহ জানান, এ সকল ঘটনায় একটি ডাকাতি ও একটি ডাকাতির প্রস্তুতির মামলা হয়েছে। ৬ জনকে আটক করা হয়েছে। বাকি ডাকাতদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

নিউজটি শেয়ার করুণ