ফতুল্লায় গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু, স্বামী আটক

শেয়ার করুণ

সদর উপজেলার ফতুল্লায় নিপা আক্তার(৩০) নামের এক গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। নিহত গৃহবধূর লাশ সদর জেনারেল (ভিক্টোরিয়া) হাসপাতাল থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ।

আজ রবিবার (১০ মার্চ) ভোর ৫ টায় হাসপাতাল থেকে লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহতের স্বামী আজিবুর রহমানকে আটক করা হয়েছে।

নিহত গৃহবধূ হলেন মানিকগঞ্জ জেলার সিঙ্গাইর থানার সাজেদ খানের মেয়ে নিপা আক্তার এবং তার স্বামী পাবনা জেলার ভেড়া থানার পূর্ব শ্রিকন্ঠদিয়ার কালু শেখের পুত্র আজিবুর রহমান। উভয়ই ফতুল্লা মুসলিমনগর মরাখাল পাড় এলাকার বাসবাস করতো এবং তারা বিসিকের মার্টিন ডাইংয়ে কর্মরত ছিলো।

নিহতের স্বামী আজিবুর গণমাধ্যমকে জানায়, চলতি মাসের ১ তারিখে মুসলিমনগর মরাখালপাড় এলাকায় ভাড়া এসে বসবাস করেতে শুরু করে এবং বিসিকস্থ মার্টিন ডাইংয়ে কাজ করে আসছিলো। তাদের মধ্যে সম্পর্কের সূত্র ধরে ৬ মাস পূর্বে বিয়ে হয়। নিহত নিপা আক্তারের এটি তৃতীয় বিয়ে। প্রতিদিনের মতো সে শনিবার রাত সাড়ে আটটার দিকে নিজ কর্মস্থল থেকে বাসায় ফিরে আসে। রাতের খাবার খেয়ে সাড়ে ১০ টার দিকে তারা একসাথে ঘুমিয়ে পরে। রাত তিনটার দিকে তার ঘুম ভেঙ্গে গেলে তিনি দেখতে পান ঘরের দরজা খোলা এবং বিছানায় স্ত্রী নেই। তখন সে বাথরুমে খোঁজ করে না পেয়ে ছাদে যায়। তখন সে নিচের দিকে তাকিয়ে দেখতে পায় তার স্ত্রীর দেহ। তখন সে দৌড়ে নিচে নেমে ডাক- চিৎকার করে আশপাশের লোকজন জড়ো করে তাদের সহোযোগিতায় তার স্ত্রীকে হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা নিপা আক্তার কে মৃত ঘোষনা করে। তবে কি ভাবে এ ঘটনা ঘটেছে সে বিষয়ে তিনি কিছুই বলতে পারছেনা।

ঘটনার সত্যতা জানিয়ে ফতুল্লা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নুরে আজম মিয়া লাইভ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, ঘটনার তথ্য পেয়ে আমরা ভিক্টোরিয়া হাসপাতাল থেকে লাশ উদ্ধার করেছি। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহতের স্বামীকে আটক করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদে প্রাথমিক ভাবে জানতে পেরেছি নিহত নিপা আক্তার শনিবার দিবাগত রাত ৩ টায় বসবাসরত বাসার ছাদ থেকে লাফিয়ে আত্মহত্যা করে। তবে ঘটনা কি ঘটেছিলো সেই বিষয়ে আরো তদন্ত চলছে। এই বিষয়ে এখনো কোন মামলা দায়ের হয় নি।

সুত্র: লাইভ নারায়ণগঞ্জ

নিউজটি শেয়ার করুণ