ফতুল্লায় মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষনের অভিযোগে আটক যুবক

শেয়ার করুণ

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার মুসলিম নগরে ওড়না দিয়ে হাত-মুখ বেঁধে পঞ্চম শ্রেনীতে পড়ুয়া মাদ্রাসা ছাত্রীকে (১৩) জোর পূর্বক ধর্ষণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

আজ বৃহস্পতিবার (১২ অক্টোবর) এ ঘটনায় পুলিশ অভিযুক্ত মাহিমকে (২২) ফতুল্লার মুসলিম নগর এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে। এর আগে ধর্ষনের শিকার ঐ কিশোরীর মা বাদী হয়ে গ্রেপ্তার মাহিমকে অভিযুক্ত করে ফতুল্লা মডেল থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করে।

মাহিম ফতুল্লা মডেল থানার মুসলমি নগরের হাসান মিয়ার পুত্র। ধর্ষণের শিকার ঐ কিশোরীর ফুফাতো ভাই সে।

মামলায় উল্লেখ করা হয়, ধর্ষিতা ঐ কিশোরী মাদ্রাসায় থেকে পঞ্চম শ্রেনীতে পড়ালেখা করে। গ্রেপ্তারকৃত মাহিম ও বাদীর পরিবার পাশাপাশি বাড়ীতে বসবাস করে। ৫ সেপ্টেম্বর রাত ১০ টার দিকে বাদী তার মেয়েকে মাদ্রসা থেকে নিজ বাসায় নিয়ে আসে। ৬ সেপ্টেম্বর বিকেল ৪ টার দিকে মাহিম বাদীর বাসায় এসে ঐ কিশোরীকে কথা আছে বলে নিজ বাসায় নিয়ে যায়। এক পর্যায়ে নিজ রুমে নিয়ে দরজা লাগিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে এবং বিষয়টি কাউকে না বলার হুমকি প্রদান করে। ঘটনার একদিন পর কিশোরী অসুস্থ হয়ে পরলে বাদীর নিকট ঘটনার বিস্তারত বর্ননা করে।

এ বিষয়ে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ফতুল্লা মডেল থানার উপ পরিদর্শক (এসআইল হানিফ জানায়, অভিযুক্ত আসামি মাহিমকে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে। কিশোরীকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুণ