বাস চালাচ্ছিলেন হেলপার, ৩০ যাত্রী নিয়ে বাস খাদে

শেয়ার করুণ

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে যাত্রীবাহী বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে ১৫-২০ জন যাত্রী আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে ৪ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে।

গতকাল শনিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) রাত ৯টার দিকে সিরাজদিখান উপজেলার কাজীর বাগ চৌরাস্তায় এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, ঢাকা-টঙ্গীবাড়ী রুটে ডিএম পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাস (ঢাকা মেট্রো গ ১৫-৯৬৬১) সন্ধ্যা ৭টার দিকে ঢাকার গুলিস্তান এলাকা থেকে টঙ্গীবাড়ীর উদ্দেশ্যে রওনা হয়। তখন গাড়ির মূল ড্রাইভার কাইয়ুম গাড়িটি চালাচ্ছিলেন।

কাইয়ুম সিরাজদিখান উপজেলার ইছাপুরা গ্রামের বাসিন্দা। এই গাড়িটি ইছাপুরা হয়ে টঙ্গীবাড়ি আসার পথে কাইয়ুম তার গ্রামের বাড়ি ইছাপুরায় নেমে যান। পরে হেলপার গাড়ি চালাচ্ছিলেন।

গাড়িটি রাত ৯টার দিকে সিরাজদিখান উপজেলার কাজিরবাগ বনভিটা এলাকায় পৌঁছালে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে যায়। এ সময়ে গাড়িতে ৩০ থেকে ৩৫ জন যাত্রী ছিলেন।

এর মধ্যে বাসে থাকা ১৫ থেকে ২০ জন যাত্রী আহত হন। ৪ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে। গাড়ির মালিকের নাম ইলিয়াস। তিনি সিরাজদিখান উপজেলার কুচিয়ামোড়া এলাকার বাসিন্দা।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত রাত পৌনে বারোটার দিকে গাড়িটি ক্রেন দিয়ে টেনে তোলার কাজ চলছে। ঘটনাস্থলে উদ্ধার অভিযান চালাচ্ছে সিরাজদীখান ফায়ার সার্ভিসের একটি টিম।

গুরুতর আহতরা হলেন, শাকিল (৩৫), জিতেন্দ্র (৭৫), উজ্জল (৩১) ও মো. হেলাল (৫২)। তারা সবাই মুন্সীগঞ্জের সিরাজদীখান ও টঙ্গীবাড়ি উপজেলার বিভিন্ন এলাকার বাসিন্দা। বর্তমানে তারা ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। বাকিদের নাম প্রাথমিক অবস্থায় জানা যায়নি।

ফায়ার সার্ভিস জানায়, বাসের ভিতরে তল্লাশি চালানো হয়েছে। তবে ভিতরে কোনো যাত্রী পাওয়া যায়নি। বাসের নিচে কেউ চাপা পড়েছে কি না তা নিশ্চিত করতে কাজ চলছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সিরাজদিখান থানার অফিসার ইনচার্জ মুজাহিদুল ইসলাম। তিনি বলেন এখন পর্যন্ত কোনো মৃত্যুর খবর শুনিনি। বাসটি খাদ থেকে উপরে তুললে বোঝা যাবে পরিস্থিতি।

সিরাজদীখান সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান রিফাত জানান, চালক নিয়ন্ত্রণ হারালে এই দুর্ঘটনা ঘটে। দুর্ঘটনা কবলিত বাসটিতে ৩০-৩৫ জন যাত্রী ছিল। এদের মধ্যে বেশিরভাগই বাস থেমে নেমে যেতে পেরেছেন। বাস টেনে তোলার কাজ চলছে।

নিউজটি শেয়ার করুণ