মাসদাইরের গার্মেন্টস কর্মীর লাশ হাসপাতালে রেখে লাপাত্তা স্বামী

শেয়ার করুণ

নারায়ণগঞ্জ ভিক্টোরিয়া হাসপাতালে তাসমিল নামের এক গার্মেন্টসকর্মীর লাশ ফেলে পালিয়ে গেছে তার কথিত স্বামী। চিকিৎসকের ধারণা তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার (২ জানুয়ারী) ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নূরে আজম বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, বিষয়টি হত্যাকাণ্ড না কি আত্বহত্যা সেটা পোস্ট মর্টেমের পর নিশ্চিত হওয়া যাবে। এই ঘটনায় এখনো কোনও মামলা হয়নি।

গত সোমবার (১ জানুয়ারি) রাতে এই ঘটনা ঘটে বলে ফতুল্লা মডেল থানার এসআই মফিজুল ইসলাম গণমাধ্যমকে জানান। তার ভাষ্যমতে, তাসমিল ও শাকিল ওরফে শাওন স্বামী স্ত্রী পরিচয় দিয়ে ফতুল্লার মাসদাইর এলাকায় অবস্থিত আমেনা গার্মেন্টসে কাজ করতো। ওই গার্মেন্টসের পাশেই কোনও একটি বাড়িতে তারা দুজন ভাড়া থাকতেন। শাকিল ওরফে শাওন নিথর অবস্থায় তাসমিলকে শহরের ভিক্টোরিয়া হাসপাতালে নিয়ে যায়। তখন হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন। এরপর শাকিল ওরফে শাওন কৌশলে হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যায়। বিষয়টি মঙ্গলবার (২ জানুয়ারী) দুপুরে জানাজানি হলে পুলিশ ওই তরুনীর নাম পরিচয় উদঘাটন করে। নিহত তাসমিল (২৪) ব্রাক্ষণবাড়িয়া জেলার সরাইল থানার রানীদিয়া গ্রামের সায়েদ মিয়ার মেয়ে।

নিউজটি শেয়ার করুণ